কোভিড-১৯ সংক্রমণের ঊর্দ্বগতির লাগাম টেনে ধরতে সরকার ঘোষিত সর্বাত্মক লকডাউনের প্রথম দিন চলছে। সাত দিনের কঠোর বিধিনিষেধের মধ্যে বিনা প্রয়োজনে বাইরে বের হওয়ার বিষয়ে আগে থেকে কঠোর সতর্কবার্তা দেওয়া হয়েছিল প্রশাসনের পক্ষ থেকে।

কঠোর লকডাউনে বিধিনিষেধ অমান্য করে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বাইরে ঘুরতে বের হওয়ায় রাজধানীর মিরপুরে শতাধিক ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত মিরপুর, গাবতলী, টেকনিক্যাল, পল্লবী এলাকায় শতাধিক ব্যক্তিকে আটক করা হয়।  

মিরপুর বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার আ স ম মাহতাব উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, জরুরি প্রয়োজনে যারা সড়কে বেরিয়েছেন তাদের আটক করে জিজ্ঞাসাবাদের মুখোমুখি করা হচ্ছে।  এই কঠোর লকডাউনের মধ্যেও যথাযথ কারণ ছাড়া ঘর থেকে বের হওয়ায় শতাধিক জনকে আটক করা হয়েছে মিরপুরের বিভিন্ন স্থান থেকে। পাশাপাশি দুজন ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে পরিচালিত অভিযানে অর্ধশত যানবাহনকে মামলার আওতায় আনা হয়েছে।

আ স ম মাহতাব উদ্দিন আরও বলেন, আটকদের জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী কঠোর লকডাউন চলাকালে মাঠে সজাগ উপস্থিতিসহ মিরপুরে নিয়মিত টহল চেকপোস্ট পরিচালনা করবে পুলিশ।

মহামারি সংক্রমণ রোধে বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা থেকে সারাদেশে কঠোর লকডাউন শুরু হয়েছে। যা আগামী ৭ জুলাই মধ্যরাত পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে। লকডাউন বাস্তবায়নে সকাল থেকে পুলিশ-র‌্যাবের পাশাপাশি সেনাবাহিনীর সদস্যদেরও টহল দিতে দেখা যাচ্ছে। ১০৬ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করছে।

ঢাকা মহানগর পুলিশের পক্ষ থেকে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, বিধি-নিষেধ ভেঙে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কেউ রাস্তায় বের হলে মামলা দেওয়া হবে এবং প্রয়োজনে গ্রেফতার করা হবে।