চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহি মাস চারেক আগেই পাঁচ বছরের সংসার ভাঙার খবর দিয়েছেন। কয়েকদিন হলো মিডিয়া পাড়ায় জোর গুঞ্জন ছিলো- দ্বিতীয় বিয়ের করেছেন। অবশেষে সেই গুঞ্জনই সত্যি হলো।

'মাহি দ্বিতীয় বিয়ে করছেন' বেশকিছুদিন ধরেই ফেসবুকেসহ সোশ্যাল মিডিয়ায় এমন গুঞ্জন চলছিল। তবে সেসব গুঞ্জনকে মাহি 'গুজব' বলছিলেন বারবার। তবে গুজবকে রবিবার দিবাগত রাতে 'সত্য'তে পরিণত করলেন ঢাকাই ছবির এই নায়িকা। মাহিয়া মাহি নিজের ফেসবুকে লিখেছেন, 'আজ ১৩.০৯.২১ ইং ১২:০৫ মি: আমাদের বিবাহ সম্পন্ন হলো । এর আগের সব কথা আসলেই গুজব ছিলো । সবাই আমাদের জন্য দোয়া করবেন এটাই একমাত্র চাওয়া।'

২০১৬ সালে জমকালো আয়োজনে সিলেটের ব্যবসায়ী পারভেজ মাহমুদ অপুকে বিয়ে করেছিলেন মাহি। এর কয়েক বছর পর থেকেই তার বিয়ে বিচ্ছেদের গুঞ্জন শোনা গেলেও তা তিনি অস্বীকার করে আসছিলেন। এরপর গত মে মাসে মাহি নিজেই ফেসবুকে অপুর সাথে তার বিবাহবিচ্ছেদের খবর জানান। বিচ্ছেদের পর থেকেই ঢালিউড এই অভিনেত্রীর বিভিন্ন ফেসবুক স্ট্যাটাসকে কেন্দ্র করে দ্বিতীয় বিয়ের গুঞ্জন শুরু হয়।

এদিকে, স্বামীকে অপুকে ডিভোর্স দেওয়ার পরেও মাহির টাইমলাইনজুড়ে  স্বামী অপুর ছবি। গত মার্চে পোস্ট করা এই ছবিগুলো এখন অতীত। মাহি রবিবার দিবাগত রাতে বিয়ের ঘোষণা দিলেও একটি সূত্র জানাচ্ছে মাসখানেক পূর্বেই বিয়ে হয়েছে রাকিবের সঙ্গে। মাহির টাইমলাইনে হলুদের কয়েকটি ছবি দেখা যাচ্ছে যেসব জুনে পোস্ট করা। গত মার্চে স্বামী অপুর সঙ্গে কোনো রিসোর্টে গিয়েছিলেন। সেই ছবিগুলো এখনও জ্বলজ্বল করছে। মাহি এখনও রেখে দিয়েছেন ছবিগুলো।

মাহির বিয়ে নিয়ে মুখ খুলেছেন সাবেক স্বামী অপু। মাহির নতুন জীবনের জন্য শুভ কামনা জানিয়ে বলেন, আমার পক্ষ থেকে নবদম্পতির জন্য শুভ কামনা রইল। তাদের নতুন জীবন আরও সুন্দর হোক,এই দোয়া থাকবে সবসময়। এর বেশি আর কিছু বলার নেই। আমি সাধারণ পরিবারের একজন সন্তান। আমাদের সমাজে একটা সম্মান আছে। সেটা আর নষ্ট করতে চাচ্ছি না। এমনিতেই অনেক হয়েছে। যেভাবে আছি ভালো আলহামদুলিল্লাহ অতিথি নিয়ে আর ঘাঁটাঘাঁটি করতে ইচ্ছে করে না।'

সাবেক ছাত্রলীগ নেতা রাকিব সরকারকে বিয়ে করেছেন মাহিয়া মাহি। রাকিব সরকারের স্ত্রী রয়েছে, রয়েছে সন্তানও। সেই স্ত্রীর সঙ্গে ছাড়াছাড়িও হয়েছে কি না জানা যায়নি। রাকিব সরকার গাজীপুর মহানগর যুবলীগের আহবায়ক কামরুল আহসান সরকার রাসেলের ছোট ভাই। এদিকে মাহিরও এটি দ্বিতীয় বিয়ে।