কুষ্টিয়ায় মসজিদে মানতের মাংস ভাগাভাগিকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষে কবির খান (৩৫) নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন।

শনিবার (৪ সেপ্টেম্বর) বিকাল ৩টার দিকে সদর উপজেলার ঝাউদিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আট জনকে আটক করেছে পুলিশ।

সদর উপজেলার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুস্তাফিজুর রহমান রতন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। কবির খান সদর উপজেলার একই থানার ঝাউদিয়া শাহী মসজিদপাড়া এলাকার মৃত মান্নান খানের ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, শনিবার চুয়াডাঙ্গার দর্শনা এলাকা থেকে ঝাউদিয়া শাহী মসজিদে আসেন কয়েকজন। তারা মানত হিসেবে মসজিদে একটি খাসি দেন। সেই খাসির মাংস ভাগাভাগিকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে কবির খানের মৃত্যু হয়।

স্থানীয় ঝাউদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান কেরামত আলী বিশ্বাস বলেন, মানতের মাংস ভাগাভাগিকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষ হয়। এ সময় লাঠির আঘাতে কবির খান মারা যান।

ইবি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুস্তাফিজুর রহমান রতন জানান, নিহতের লাশ উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘটনায় সঙ্গে জড়িত আট জনকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশের অন্যতম প্রত্নতাত্ত্বিক নির্দশন ঝাউদিয়া শাহী মসজিদ। কুষ্টিয়া শহর থেকে প্রায় ২৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, ঝিনাইদহ ও কুষ্টিয়া জেলার মধ্যবর্তী স্থানে ঝাউদিয়া গ্রামে এটির অবস্থান। প্রতিদিন শত শত দর্শনার্থী মসজিদটি দেখতে আসে।