যুক্তরাষ্ট্রে ২০২০ সালে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে নিয়ম অনুসারে অনুষ্ঠিত প্রেসিডেনশিয়াল বিতর্কের তিন দিন আগে কোভিড-১৯-এ আক্রান্ত হয়েছিলেন তৎকালীন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তাঁর চিফ অব স্টাফ মার্ক মিডোস নতুন বইয়ে এসব তথ্য উল্লেখ করেছেন।

যুক্তরাজ্যের গণমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান এ খবর প্রথম প্রকাশ করে। মার্ক মিডোস তাঁর বইতে লিখেছেন, এই বিতর্কে অংশ নেওয়ার জন্য প্রার্থীকে করোনা নেগেটিভ থাকতে হয়। কিন্তু ট্রাম্পকে সেই সময় বিতর্কে অংশ নেওয়া থেকে থামানো সম্ভব হয়নি। ডেমোক্র্যাটদের প্রার্থী ও বর্তমান প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সঙ্গে বিতর্কে অংশ নিয়েছিলেন তিনি।

মিডোস লিখেছেন, ট্রাম্প করোনা পজিটিভ—স্বাস্থ্য পরীক্ষার এমন প্রতিবেদন আসার পরপরই আবারও পরীক্ষা করা হয়। এতে তাঁর করোনা নেগেটিভ ফল আসে।

ট্রাম্পের করোনা পজিটিভ হওয়া নিয়ে প্রতিবেদন করেছে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক টাইমস। পত্রিকাটির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ট্রাম্প প্রশাসনের দুই কর্মকর্তা তাঁর করোনায় আক্রান্ত হওয়ার তথ্য নিশ্চিত করেছেন। গতকাল বুধবার এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন তাঁরা।

ট্রাম্পের এই করোনায় আক্রান্ত হওয়ার খবর গোপন করে গিয়েছিল হোয়াইট হাউস। মার্ক মিডোস তাঁর বইতে লিখেছেন, প্রথম বিতর্কের আগে পেনসিলভানিয়ায় সমাবেশে অংশ নিতে যাচ্ছিলেন ট্রাম্প। এ সময় তাঁকে দেখে মনে হচ্ছিল, তিনি খানিকটা ক্লান্ত। ধারণা করা হচ্ছিল, তাঁর ঠান্ডা লেগেছে। কিন্তু পরে পরীক্ষায় জানা যায়, তিনি করোনায় আক্রান্ত।

এদিকে নেগেটিভ রিপোর্ট পাওয়ার পর ট্রাম্প বিতর্কে অংশ নেন। এরপর আবারও তাঁর করোনায় আক্রান্ত হওয়ার রিপোর্ট পাওয়া যায়। এরপর ট্রাম্প নিজে টুইট করে জানান, তিনি করোনায় আক্রান্ত। গত বছরের ১ অক্টোবর এই খবর দেন তিনি। এর এক দিন পর তিনি হাসপাতালে ভর্তি হন। আর প্রথম বিতর্কটি অনুষ্ঠিত হয়েছিল গত ২৯ সেপ্টেম্বর।

তবে এনবিসি নিউজের খবরে বলা হয়েছে, ট্রাম্প এই করোনায় আক্রান্ত হওয়ার খবর অস্বীকার করেছেন। এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, এটা গুজব।