তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, পঁচাত্তরের পর বঙ্গবন্ধুকে ছাড়া বাংলাদেশ ছিল নাবিকবিহীন তরীর মতো।  

২০২১ সালে শেখ মুজিবুর রহমানের জীবনীর ওপর দেশের প্রথম অ্যানিমেশন চলচ্চিত্র নির্মাণের ঘোষণাও দেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী।

বুধবার (১৭ মার্চ) শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন জুনাইদ আহমেদ পলক।আইসিটি বিভাগের উদ্যোগে “তথ্য প্রযুক্তির উন্নয়নে বঙ্গবন্ধুর অবদান” শীর্ষক এ আলোচনা সভা হয়।  

পলক বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জন্মগ্রহণ করেছেন বলেই আজ আমরা স্বাধীন দেশের নাগরিক, মায়ের ভাষা বাংলায় কথা বলতে পারি। আমাদের দুর্ভাগ্য যে পঁচাত্তরের পরে আমাদের যে প্রজন্ম জন্মগ্রহণ করেছে, তাদের কাছে বঙ্গবন্ধুর দর্শন, কর্মময় জীবন আড়াল করে রাখা হয়েছিল। এ কারণেই এ প্রজন্ম বড় স্বপ্ন দেখার সাহস পায়নি; দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে সামনে এগিয়ে যাওয়ার সাহস পায়নি। বঙ্গবন্ধুর অবর্তমানে একটি লক্ষ্যবিহীন, নাবিকবিহীন তরীর মতো বাংলাদেশ তার ঠিকানা খুঁজে পায়নি। আমরা লক্ষ্য করলাম যে ২১টি বছর পর বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা যখন এ দেশ পরিচালনার দায়িত্ব পেলেন, তারপর আবার বঙ্গবন্ধুর আদর্শ, চেতনা তরুণ প্রজন্মের সামনে তুলে ধরতে পারলাম। আর দেশবাসী দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়ে তুলতে আত্মনিয়োগ করল। যার ফলাফল শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ১২ বছরে স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশের কাতারে উন্নীত হতে পারলাম।

 শেখ মুজিবুর রহমানের বিভিন্ন বিষয় ডিজিটালি দেশের জনগণের সামনে তুলে ধরতে আইসিটি বিভাগ থেকে কাজ করা হচ্ছে বলে জানান আইসিটি প্রতিমন্ত্রী।  

পলক বলেন, আমরা তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ থেকে ৭ মার্চের ভাষণে বঙ্গবন্ধুকে রঙিন রূপান্তর করে তুলে ধরেছিলাম। বঙ্গবন্ধুর বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আমরা ‘মুজিব ১০০’ নামে একটি অ্যাপ তৈরি করেছি। যারা বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে গবেষণা করতে চান, তার বিষয়ে আরও জানতে চান, তাদের জন্য এ অ্যাপ একটি ‘ইনফরমেশন হাব’।

 প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার লেখা ‘মুজিব আমার পিতা’ বইয়ের আলোকে একটি অ্যানিমেশন চলচ্চিত্রও নির্মাণ করা হবে বলে ঘোষণা দেন জুনাইদ আহমেদ পলক।  

তিনি বলেন, শিশুদের জন্য নির্মিতব্য এ চলচ্চিত্রটির নির্মাণকাজ শেষ হয়েছে। শেষ সময়ের কিছু কাজ বাকি আছে। ২০২১ সালের কোনো একটি সময়ে এটি প্রকাশ করা হবে। এছাড়া বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে ১০০ মিনিটের একটি অ্যানিমেশন সিরিজ তৈরি করব। সেখানে ১০টি পর্বে বঙ্গবন্ধুর জীবনের পাঁচটি অধ্যায় তুলে ধরা হবে।

 অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে আইসিটি বিভাগের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলম, বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হোসনে আরা বেগমসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।