কানাডায় আবারও হঠাৎ করে করোনার প্রকোপ বৃদ্ধি পেয়েছে। সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা ২৩ হাজার ১৪১ জনে দাঁড়িয়েছে।

কানাডার প্রধান চারটি প্রদেশ ব্রিটিশ কলম্বিয়া, অন্টারিও, মন্টিয়ল এবং আলবার্টাতেও নতুন করে এ মহামারির সংক্রমণ বৃদ্ধি পেয়েছে।

এ কারণে কর্তৃপক্ষ সবাইকে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখাসহ বিধিনিষেধ মেনে চলার জন্য আবারও গুরুত্বসহকারে পরামর্শ দিয়েছে।

অন্টারিও সরকার একটি স্টে-অ্যাট-হোম অর্ডার সক্রিয়ভাবে বিবেচনা করছে, তবে আদেশটি প্রদেশব্যাপী না অঞ্চলব্যাপী জারি করা হবে তা এখনও স্পষ্ট নয়।

অন্টারিওতে গত পাঁচ দিনে প্রায় ১৫ হাজার নতুন কোভিড রোগী শনাক্ত হয়েছে এবং আইসিইউতেও নতুন রোগীদের চাপ বাড়ছে।

মঙ্গলবার অন্টারিও প্রদেশের প্রিমিয়ার ফোর্ড বলেন, আমরা খুব দ্রুত আরও বিধিনিষেধ আরোপ করতে যাচ্ছি। এর পর আমরা টরন্টোর তিনটি অঞ্চলের ব্যপারে সিদ্ধান্ত নেব।

অন্যদিকে কানাডায় ভ্যাকসিন সরবরাহ নিয়ে ফেডারেল সরকারের প্রতি আবারও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অন্টারিওর প্রিমিয়ার ডগ ফোর্ড। গত সপ্তাহে ভ্যাকসিন সরবরাহে আবারও বিলম্ব হওয়ার খবর শোনার পর তিনি একে তামাশা বলে মন্তব্য করেন। সরবরাহ বিলম্বের বিষয়টি ফেডারেল এমপিদের জানাতে নাগরিকদের প্রতি আহ্বান জানান ডগ ফোর্ড।

উল্লেখ্য, গত বছর কানাডায় সর্বপ্রথম করোনাভাইরাস শনাক্ত হয় ব্রিটিশ কলম্বিয়াতে। সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, কানাডায় করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ১০ লাখ ২০ হাজার ৮৯৩ জন, মৃত্যুবরণ করেছেন ২৩ হাজার ১৪১ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ৯ লাখ ৩৭ হাজার ৪৫৬ জন।