নতুন ৭টি প্রকল্পসহ মোট ১০টি প্রকল্পের অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)। এসব প্রকল্পের ব‍্যয় ধরা হয়েছে ২৯ হাজার ৩৪৪ কোটি ২৭ লাখ টাকা। এর মধ্যে সরকারি অর্থায়ন ১১ হাজার ৩ কোটি ৩০ লাখ টাকা এবং বৈদেশিক ঋণ ১৮ হাজার ৯৩২ কোটি ৪ লাখ টাকা।

মঙ্গলবার (২৩ নভেম্বর) একনেক চেয়ারপারসন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে শেরে বাংলা নগরস্থ এনইসি সম্মেলন কক্ষে যুক্ত হয়ে এসব প্রকল্পের অনুমোদন দেন।

একনেক সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ‍্য জানান।

অনুমোদিত প্রকল্পসমূহ হলো- নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়ের অবকাঠামোগত পুনর্গঠনের মাধ্যমে মেরিন একাডেমির আধুনিকীকরণ প্রকল্প। এই প্রকল্পের ব‍্যয় ধরা হয়েছে ১১৪ কোটি ৯৭ লাখ টাকা। পুরো ব‍্যয় সরকার বহন করবে। আরিচা (বরশাইল) ঘিওর-দৌলতপুর-নাগরপুর-টাঙ্গাইল আঞ্চলিক মহাসড়ক (আর-৫০৬) যথাযথ মান প্রশস্ততায় উন্নীতকরণ প্রকল্প; এই প্রকল্পের ব‍্যয় ধরা হয়েছে ১৬৩৫ কোটি ১০ লাখ টাকা। পুরোটাই সরকার অর্থায়ন করবে।

নড়াইল শহরাংশের জাতীয় মহাসড়ক (এন-৮০৬) প্রশস্তকরণ ও উন্নয়ন প্রকল্প; তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের ডিজিটাল সংযোগ স্থাপন প্রকল্প। এই প্রকল্পের ব‍্যয় ধরা হয়েছে ১৭৯ কোটি ৯৯ লাখ টাকা। পুরো ব্যয় বহন করবে সরকার। তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের ডিজিটাল সংযোগ স্থাপন প্রকল্প। এই প্রকল্পের ব‍্যয় ধরা হয়েছে ৫ হাজার ৮৮৩ কোটি ৭৪ লাখ টাকা। এর মধ্যে সরকার দিবে ২৫০৫ কোটি ১৬ লাখ টাকা। বাকিটা চীনা ঋণ। রুরাল ট্রান্সপোর্ট ইমপ্রুভমেন্ট প্রজেক্ট-২ (আরটিআইপি-২) এর তৃতীয় সংশোধিত প্রকল্প। এই প্রকল্পের মূল ব‍্যয় ছিল ৩ হাজার ৩৩৪৩ কোটি টাকা। তৃতীয় ধাপে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪ হাজার ৮১৯ কোটি টাকা। এরমধ্যে সরকার দিবে ১৭৬৯ কোটি ২০ লাখ টাকা। বাকি অর্থায়ন করবে আইডিএ।

সিলেট বিভাগের গুরুত্বপূর্ণ গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন (১ম সংশোধিত) প্রকল্প। এই প্রকল্পের ব‍্যয় ধরা হয়েছে ২৩৯ কোটি ৯৩ লাখ টাকা। পুরো অর্থায়ন করবে সরকার। হাওর এলাকায় উড়াল সড়ক ও ভৌত অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্প। এই প্রকল্পের ব‍্যয় ধরা হয়েছে ৩ হাজার ৪৯০ কোটি টাকা। পুরোটাই সরকারি অর্থায়ন।

খুলনা জেলার পোল্ডার নং-১৪/১ পুনর্বাসন প্রকল্প। এই প্রকল্পের ব‍্যয় ধরা হয়েছে ১১৭২ কোটি ৩১ লাখ টাকা। পুরো ব্যয় বহন করবে সরকার। দুর্যোগ ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা বর্ধিতকরণ প্রকল্প (কম্পোনেন্ট-১, বিডব্লিউডিবি অংশ); ৭৫৭ কোটি ৮১ লাখ টাকা ব‍্যয়ের এই প্রকল্পে সরকার অর্থায়ন করবে ২০১ কোটি ৯৫ লাখ টাকা। বাকি টাকা ঋণ হিসেবে জাইকা দিবে।

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের ‘মাতারবাড়ি ২×৬০০ আল্ট্রা সুপার ক্রিটিক্যাল কোল ফায়ার্ড পাওয়ার (১ম সংশোধিত) প্রকল্প। এই প্রকল্পের মূল ব‍্যয় ছিল ৩৫ হাজার ৯৮৪ কোটি টাকা ৮৪ লাখ টাকা। সংশোধিত ব‍্যয় ধরা হয়েছে ৫১ হাজার ৮৫৪ কোটি ৮৮ লাখ টাকা। সংশোধিত ব‍্যয়ের ১৪৭৯ কোটি ৫০ লাখ টাকা সরকার দিবে, বাকিটা জাইকা অর্থায়ন করবে।

কৃষিমন্ত্রী মো. আব্দুর রাজ্জাক, স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম, শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন এবং সংশ্লিষ্ট মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রীগণ সভার কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করেন। সভায় মন্ত্রিপরিষদ সচিব, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব, এসডিজি'র মুখ্য সমন্বয়ক, পরিকল্পনা কমিশনের সদস্যবৃন্দ, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়সমূহের সচিব এবং ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।


একনেকে অনুমোদিত প্রকল্পগুলো হচ্ছে-

১. ‘অবকাঠামোগত পুনর্গঠনের মাধ্যমে বাংলাদেশ মেরিন একাডেমির আধুনিকীকরণ’ প্রকল্প।

২. ‘আরিচা (বরঙ্গাইল)-ঘিওর-দৌলতপুর-নাগরপুর-টাঙ্গাইল আঞ্চলিক মহাসড়ক (আর-৫০৬) যথাযথ মান ও প্রশস্ততায় উন্নীতকরণ’ প্রকল্প।

৩. ‘নড়াইল শহরাংশের জাতীয় মহাসড়ক (এন-৮০৬) প্রশস্তকরণ ও উন্নয়ন’ প্রকল্প।

৪. ‘ইস্টাবলিশিং ডিজিটাল কানেকটিভিজ (ডিজিটাল সংযোগ স্থাপন)’ প্রকল্প।

৫. ‘রুরাল ট্রান্সপোর্ট ইম্প্রুভমেন্ট প্রজেক্ট-২ (আরটিআইপি-২) (তৃতীয় সংশোধিত)’ প্রকল্প।

৬. ‘সিলেট বিভাগের গুরুত্বপূর্ণ গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন’ (১ম সংশোধিত) প্রকল্প।

৭. ‘হাওর এলাকায় উড়াল সড়ক ও ভৌত অবকাঠামো উন্নয়ন’ প্রকল্প।

৮. ‘খুলনা জেলার পোল্ডার নং-১৪/১ পুনর্বাসন’ প্রকল্প।

৯. ‘দুর্যোগ ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা সম্প্রসারণ (কম্পোনেন্ট-১, বাপাউবো অংশ)’ প্রকল্প।

১০. ‘মাতারবাড়ি ২*৬০০ মেগাওয়াট আল্ট্রা সুপার ক্রিটিক্যাল কোল ফায়ার্ড পাওয়ার প্রজেক্ট (১ম সংশোধিত)’ প্রকল্প।